বিদ্যালয়ের নিয়মাবলী

১। সর্বশক্তিমান আল্লাহর নাম স্মরণ করে কাজ আরম্ভ করবে।
২। মাতা-পিতা, শিক্ষক-শিক্ষিকা ও বড়দের শ্রদ্ধা করবে।
৩। স্বদেশকে ভালবাসবে এবং স্বদেশের মঙ্গল সাধনের জন্য সর্বদা সচেষ্ট থাকবে।
৪। সদা সত্য কথা বলবে। গুরুতর অপরাধ করলেও মিথ্যা বলবে না।
৫। অসৎ সঙ্গ ত্যাগ করবে। অন্যায় আচরণকে ঘৃণা করবে। অন্যায়কারীকে প্রতিরোধ করবে।
৬। অধ্যবসায়ী ও পরিশ্রমী হবে, আত্মবিশ্বাসে বলীয়ান হয়ে কাজ করবে ও সফলতার জন্য আল্লাহর উপর ভরসা করবে।
৭। প্রত্যেক বয়ঃপ্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ বাধ্যতামূলক। নামাজে অমনোযোগী ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি কঠোর ব্যবস্থা অবলম্বন করা হবে।
৮। বিদ্যালয়ে নিয়মিত কাজ আরম্ভ হওয়ার ১৫/২০ মিনিট পূর্বে বিদ্যালয়ে উপস্থিত হবে। এর আগে বা পরে আদৌ আসবে না।
৯। ছুটির ঘন্টা বাজার সাথে সাথেই ছাত্র-ছাত্রীগণ শৃঙ্খলার সঙ্গে বিদ্যালয় অঙ্গন ত্যাগ করবে।
১০। বিদ্যালয়ের নির্ধারিত পোশাক পরে বিদ্যালয়ে আসবে।
১১। সর্বদা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ও পাক-পবিত্র থাকবে। শরীর ও পোশাক পবিত্র রাখার প্রতি সর্বদা সতর্ক থাকবে। নখ কেটে রাখবে।
১২। প্রতিদিন সমাবেশে শৃঙ্খলার সাথে যোগ দিবে এবং জাতীয় সংগীত ও কোরআন তেলাওয়াতে অংশগ্রহণ করবে। সমাবেশে কথা বলবে না।
১৩। সাপ্তাহিক পরীক্ষায় উপস্থিত থাকবে । সাপ্তাহিক পরীক্ষার নম্বর, নামাজ ও কোরআন পাঠ, নিরক্ষরতা দূরীকরণ ও বৃক্ষ রোপন সংক্রান্ত গাইড শিক্ষকের দেওয়া নম্বর ডায়েরীতে নির্দিষ্ট তারিখে লিখবে।
১৪। শ্রেণি শিক্ষক ও গাইড শিক্ষকের আদেশ পালন করবে। শ্রেণি শৃঙ্খলা বজায় রাখবে।
১৫। প্রতিদিনের পিরিয়ড শেষে শিক্ষক পরিবর্তনের সময় আসন ছাড়িয়া বাইরে যাবে না।
১৬। প্রতিদিনের পাঠ প্রস্তুত করে বিদ্যালয়ে আসবে। কোনক্রমেই বাড়ীর কাজ বিদ্যালয়ে করতে পারবে না।
১৭। বিদ্যালয়ের অঙ্গন ও নিজেদের শ্রেণিকক্ষ নিজেরাই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখবে।
১৮। প্রত্যেক পিরিয়ডের কাজ ঠিকমত সম্পন্ন করার জন্য খাতা, কলম ও বই নিয়ে বিদ্যালয়ে আসবে।
১৯।  অর্ধ- বার্ষিক/বার্ষিক/প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষার খাতা হাতে পাওয়ার ৭ দিনের মধ্যে অভিভাবককে দেখিয়ে তার স্বাক্ষর নিয়ে শ্রেণি শিক্ষকের নিকট জমা দিবে।
২০। ডায়েরী ষান্মাষিক/প্রাক-নির্বাচনী ও বার্ষিক /নির্বাচনী পরীক্ষা আরম্ভ হওয়ার পূর্বদিন এবং পাঠোন্নতি বিবরণীপত্র হাতে পাওয়ার ৭ দিনের মধ্যে অভিভাবকের স্বাক্ষর নিয়ে শ্রেণি শিক্ষকের নিকট জমা দিবে।
২১। নিয়মিত বিদ্যালয়ে আসবে। অসুস্থতার কারণে ৭ দিনের বেশী অনুপস্থিত থাকলে মেডিকেল সার্টিফিকেটসহ দরখাস্ত করবে।
২২। বিশেষ অসুস্থতা ছাড়া অন্য কোন কারণে বিদ্যালয়ে আসার পর ছুটি দেয়া হবে না। জরুরী কোন কারণে ছুটির প্রয়োজন হলে অভিভাবকের স্বাক্ষর ও মোবাইল নম্বর যুক্ত দরখাস্ত আনতে হবে।
২৩। প্রতিটি বিষয়/পত্রে একাডেমিক ক্যালেন্ডার অনুসারে শ্রেণি অভীক্ষা/ সাপ্তাহিক পরীক্ষা অনুষ্ঠতি হবে । প্রত্যেক ছাত্র-ছাত্রীকে সকল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। প্রত্যেক পত্রের জন্য বিদ্যালয় কর্তৃক নির্ধারিত পৃথক পৃথক খাতা ব্যবহার করতে হবে এবং সংরক্ষণ করতে হবে।